চা পান নাকি বিষপান কোনটা ?

আমাদের দেশে পানীয় হিসেবে চা অন্যতম।বিশেষকরে গল্পে,আড্ডাতে চায়ের চলন খুব বেশি।

কিন্তু চায়ের চুমুকে বিষ পান করছেন না তো?

করোনা মহামারীর কারণে ভাইরাস থেকে বাঁচার জন্য কম-বেশি প্রায় সব চায়ের দোকানে উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়েছে ওয়ান টাইম প্লাষ্টিক কাপের ব্যবহার।দেশের হাজারো চা বিক্রেতা মূলত ভাইরাস থেকে বাঁচার জন্য এ উপায় অবলম্বন করছে  । কিন্তু আমরা আগেই মানবদেহে প্লাস্টিকের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে অবগত আছি,যে প্লাষ্টিক কতটা ক্ষতিকর সাস্থ্যের জন্য। প্লাস্টিকের কাপের ব্যবহারের ফলে প্লাষ্টিকণা তথা মাইক্রোপ্লাস্টিক আমাদের দেহের অভ্যন্তরে প্রবেশ করছে, যার ফলে মানবদেহে নানানধরনের জটিল রোগের সৃস্টি হতে পারে। যেমন ক্যান্সার, শ্বাসতন্ত্রের ক্ষতি,স্নায়ুজনিত সমস্যা ইত্যাদি।চায়ের দোকানিদের এত বেশি প্লাষ্টিক ব্যবহারের ফলে মানুষের স্বাস্থঝুঁকি অনেক বেশি বেড়ে যাচ্ছে যা করোনা আতঙ্ক থেকেও অনেক বেশি ভয়ঙ্কর।

তো, কি ভাবছেন চা পান করা ছেড়ে দিবেন?

উত্তরটা হলো না,কখনোই না।

অনেক আগে থেকেই আমাদের দেশে চায়ের দোকানগুলোতে কাচের কাপ বা চিনামাটির কাপের প্রচলন আছে।

এক্ষেত্রে ভাইরাসের সংক্রমণ রোধের জন্য কাপগুলো গরম পানি দিয়ে ধুয়ে নিলেই হলো।

জ্বি, হ্যাঁ আপনি ঠিকই শুনেছেন,যদি চায়ের কাচের  কাপগুলো  গরম পানি দিয়ে ধুয়ে নেন তাহলে ভাইরাসে সংক্রমণের সুযোগ নেই বললেই চলে।

তাই সুস্থ থাকার জন্য প্লাষ্টিকের কাপকে বর্জন করুন। অতএব,চায়ের কাপে বিষপান না করে চা পান করুন।

নিজে সচেতন হন, সুস্থ থাকুন”

Leave a Reply

Your email address will not be published.

AllEscort