দ্রুত ঘুমানোর ৫ টি উপায়!

দ্রুত ঘুমানোর ৫ টি উপায়!

 
 
আজকাল না আমরা পর্যাপ্ত ঘুমাই না আমাদের ঘুম আসে।আর যদি কোন মতে ঘুমিয়ে পড়ি তাহলে ঘুম থেকে জাগ্রত হওয়ার পর আমাদের তেমন একটা ফ্রেশ ফিল হয়না যেমনটা আগে হত। কারণ রিসার্চার দের মতে, রাত ১০ টা থেকে ৩ টা আমাদের শরীরে এমন হরমোন রিলিজ হয় যা আমাদের শরীরের জন্য সবচেয়ে বেশি লাভবান। কিন্তু আমরা এখন সবাই এই সময় PUBG,Netflix বা Youtube নিয়ে পড়ে থাকি। তাহলে চলুন জেনে নেয়া যাক ঘুমানোর ৫ টি কার্যকর
কৌশল!
১. 4-7-8 Breathing technique:এটি এক ধরনের মেডিটেশন যা আপনাকে দুশ্চিন্তা কমাতে,রাগ দমন করতে এবং পর্যাপ্ত ঘুম পেতে সাহায্য করবে।
এটি করা অনেক সহজ আপনি প্রথমে ৪ সেকেন্ড ধরে শ্বাস ভিতরে নিবেন ৭ সেকেন্ড ধরে রাখবেন এবং ৮ সেকেন্ড ধরে ছাড়বেন। এমন ৪ থেকে ৮ বার করলে আপনার খুব দ্রুত ঘুম পাবে এবং সেই ঘুমটি উন্নত মানের ঘুম হবে যার ফলে আপনি উঠার পর অনেক ফ্রেশ এবং এনার্জেটিক ফেল করবেন।
২. Artificial lights: আর্টিফিশিয়াল লাইট বলতে বিদ্যুৎ ধারা জলে এমন বাতি বোঝানো হয়। যেমন: আপনার ঘরের টিউবলাইট, এনার্জি সেভিং লাইট, বালব ইত্যাদি। আমাদের শরীরে এক ধরনের সেন্সর থাকে যা আলোকে ডিটেক্ট করে ফেলে ফলে ব্রেন আমাদের শরীরকে জেগে থাকতে নির্দেশ দেয় ফলে আমরা ঘুমাতে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা হয়। তাই ঘুমানোর সময় এটা খেয়াল রাখবেন যে আপনার ঘরটি যেন সম্পূর্ণ অন্ধকার থাকে।
৩.ASMR SOUNDS: এসএমআর সাউন্ড বলতে এমন ধরনের সাউন্ড বোঝানো হয় যা শুনে আমাদের মস্তিষ্ক রিলাক্স হয়ে যায়।যেমন: বৃষ্টির শব্দ,ঝর্ণার শব্দ,সমুদ্রের ঢেউয়ের শব্দ। এটি সোনার ফলে আপনার মস্তিষ্ক রিলাক্স হয়ে যায় যা আমাদের ঘুম একটি গুরুত্বপূর্ণ রোল পালন করে।
 
৪.Body temperature: আমাদের শরীরের তাপমাত্রা যত কম হবে আমাদের ঘুম তত ভালো হবে। আপনি হয়তো খেয়াল করে থাকবেন যে শীতকালে ঘুমিয়ে আমরা যেমন আনন্দ পাই গ্রীষ্মকালে ঘুমিয়ে তেমন আনন্দ পাওয়া যায় না। তাই গেলে আপনার কাছে AC,Cooler,Fan যেটা থাকে সেটার ব্যবহার করুন যদি আপনার কাছে কিছুই না থাকে তাহলে কমপক্ষে গোসল করে ঘুমান। গোসলের ক্ষেত্রে হালকা গরম পানি সবচেয়ে উত্তম।
৫.Physical activity: আপনি আপনার শরীর দিয়ে যত বেশি কাজ করবেন আপনার ঘুম তত ভালো হবে। আপনি হয়তো কখনো আপনার মা এর মুখে শুনেন নি যে তার কখনো পর্যাপ্ত ঘুম হয়নি। কারণ তিনি প্রতিদিনই প্রচুর কাজ করেন যার ফলে তার ভালো ঘুম হয়। আমাদের বর্তমান অবস্থা এর জন্য বাড়িতে বসে থাকতে হবে যার ফলে আমাদের কাজ করার মত কিছুই নেই। এই ক্ষেত্রে আপনি দুইটি কাজ করতে পারেন।
১. মা কে বাড়ির কাজে সাহায্য করা।
২. শারীরিক কসরত করা।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.